Lok Sabha Elections 2019: নরেন্দ্র মোদী ক্ষমতায় ফিরলে, বাংলায় বিজেপি-র আসন বেশ কিছু বাড়লে কী কী হতে পারে
বঙ্গে পদ্ম ফোটাতে মোদী তাকিয়ে দিলীপ-মুকুলের দিকে। (File Photo)

কলকাতা, ৭মে: দেশজুড়ে চলা সাত দফার লোকসভা নির্বাচন (Lok Sabha Election) শেষের দিকে এসে পড়েছে। এখন সবার একটাই হিসেব, কে কটা আসন জিতবে। কার সরকার ক্ষমতায় আসবে। কিং কে হবে। কে হবে কিং মেকার। বাংলার রাজনীতিতে কান পাতলে অবশ্য আসছে কিছু অন্য প্রশ্নও। নরেন্দ্র মোদী (Narendra Modi) ফের ক্ষমতায় ফিরবেন কিনা এই প্রশ্নের মতই, রাজ্যে ৪২টি আসনে বিজেপি কটা পেতে চলেছে সেটা নিয়েও কার্যত গবেষণা চলছে। অনেকগুলো সম্ভাবনার মধ্যে যে সম্ভাবনাটা আসছে, তা হল এনডিএ (NDA) -র সুবাদে নরেন্দ্র মোদী ফের সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়ে সিংহাসনে ফিরছেন। আর এ রাজ্যে বিজেপি (BJP) তাদের আসন বাড়িয়ে ৮থেকে ১০-এ নিয়ে যেতে পারে। সত্যি যদি এই সম্ভাবনাটা বাস্তবে মিলে যায়। তাহলে কী হতে পারে!

৫) সারদা কেলেঙ্কারি (Saradha Scam)-তে বড় ব্রেকিং নিউজ আসতে পারে 

অতিম শাহ (Amit Shah) প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন, ক্ষমতায় ফেরার দু সপ্তাহের মধ্যেই সারদা কেলেঙ্কারি ( Saradha Scam)-র সঙ্গে জড়িতদের শাস্তি দেওয়া হবে। ভোট শুরুর ঠিক আগেই সারদা কেলেঙ্কারি নিয়ে সিবিআইয়ের তৎপরতা দেখা গিয়েছিল। সেই তৎপরতায় সিবিআই বনাম রাজ্যে পুলিশের প্রকাশ্য দ্বন্দ্ব যুদ্ধ গোটা দেশ দেখেছিল। একটা সময় সারদা কেলেঙ্কারিতে জেলে ছিলেন মদন মিত্র (Madan Mitra)। মদন মিত্র এখন দিব্যি ভোটে লড়ছেন। বিজেপি (BJP) নেতারা বলছেন, মোদী ফের ক্ষমতায় ফিরছেন এটা যেমন নিশ্চিত, রাজ্যের বড় বড় তৃণমূল নেতারা ফের জেলে যাচ্ছেন সেটাও নিশ্চিত।

৪) তৃণমূল (TMC)-এ ভাঙন বাড়তে পারে

লোকসভা (Lok Shabha) ভোটের ঠিক আগে তৃণমূলের দুই সাংসদ, এক দাপুটে বিধায়ক। দুই সাংসদ সৌমিত্র খাঁ, অনুপম হাজরা দল ছাড়ার পর তৃণমূল ছাড়েন ভাটপাড়ার দাপুটে বিধায়ক অর্জুন সিং। এই তিন দলত্যাগীর চাপ পড়ে তৃণমূলের ওপর। তার ওপর আবার রাজ্যে নির্বাচনী সভায় এসে খোদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (Narendra Modi) বলে যান, তৃণমূল (TMC)-র ৪০ জন বিধায়ক তার সঙ্গে যোগাযোগ রাখছেন। যা নিয়ে রাজ্য বিজেপি নেতারা বলছেন, সংখ্যাটা আরও বাড়বে মোদীজি ক্ষমতায় ফিরলেই।

৩) কংগ্রেস (Congress) অস্তিত্ব সঙ্কটে পড়তে পারে

মমতা সুনামীতে দক্ষিণবঙ্গে অনেক আগেই সাইনবোর্ডে পরিণত হয়েছে কংগ্রেস। এবার উত্তরবঙ্গেও যায় যায় দশা হতে পারে কংগ্রেসের। মুকুল রায়দের দাবি উত্তরবঙ্গে এবার চমকপ্রদ ফল করতে চলেছে বিজেপি। আর মুকুল রায়দের দাবি যদি সত্য়ি হয়, তাহলে উত্তরবঙ্গে ধসে যাবে কংগ্রেসের সংগঠন, বাড়বে হাত ছেড়ে পদ্ম যাওয়ার ভিড়।

২) বিজেপি (BJP)-র বুথ ভিত্তিক সংগঠনে গতি পাবে

অমিত শাহ দীর্ঘদিন ধরেই জোর দিচ্ছেন বাংলার প্রতিটি বুথে অন্তত পাঁচজন করে বিজেপি বাহিনী তৈরি করা। যারা চোখেচোখ দিয়ে তৃণমূলের সন্ত্রাস রুখবে। কিন্তু রাজ্য বিজেপি নেতারা বুঝেছেন, সেটা সম্ভব নয়। ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনেও বাংলায় বিজেপি-র বুথভিত্তিক সংগঠন বেশ কিছু জায়গায় একেবারেই দুর্বল দেখা গিয়েছে। এবার ফের মোদী ফিরলে, রাজ্যে বিজেপি-র আসন বেশ খানিকটা বাড়লে ২০২১ বিধানসভা নির্বাচনের আগে বিজেপি-র বুথভিত্তিক সংগঠন দারুণ মজবুত করতে কোমর বেধে নামবে।

১) মুকুল রায় (Mukul Roy)-এর ছোটাছুটি আরও বাড়বে

বিজেপি-র কিছু নেতা বলেন, মুকুল রায় ছুটলেই তৃণমূল নেতাদের রক্তচাপ বাড়ে। যেভাবে ছোটাছুটি করে তৃণমূলে ভাঙন ধরিয়েছেন মুকুল, তাতে বিজেপি-র কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব বেজায় খুশি। এটা বলাই যায়, ফের মোদী ফিরলে, রাজ্যে বিজেপি-র আসন বেশ খানিকটা বাড়লে মুকুল রায়ের ছোটাছুটি বাড়বে।