Punjab: মোদীর পর এবার পঞ্জাবে কৃষক বিক্ষোভে আটকে গেলেন নাড্ডা
JP Nadda. (Photo Credit: PTI)

লুধিয়ানা, ১৫ ফেব্রুয়ারি: প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (PM Narendra Modi)-র পর এবার পঞ্জাবে (Punjab) কৃষক বিক্ষোভের কারণে আটকে গেলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা (JP Nadda)। পঞ্জাব বিধানসভা নির্বাচনের (Punjab Elections 2022) প্রচারে আজ ভাতিন্দায় বড় জনসভায় করতে গিয়েছেন নাড্ডা। কিন্তু কৃষকদের প্রতিবাদ-আন্দোলনের কারণে সেখানকার হেলিপ্যাডেই এক ঘণ্টারও বেশি সময় আটকে পড়েন নাড্ডা। তারপর পুলিশের বিশাল কনভয় এসে বিজেপি সভাপতিকে সভাস্থলে নিয়ে যায়।

বিজেপি-র অভিযোগ পঞ্জাবের কংগ্রেস সরকার পরিকল্পনা করে মোদী, নাড্ডাদের ঢুকতে না দিয়ে ভোটে জিততে চাইছে। কংগ্রেস নেতৃত্বের দাবি কৃষক বিক্ষোভে তাদের কোনও হাত নেই। মানুষের ক্ষোভ আছড়ে পড়ছে বিজেপি নেতৃত্বের ওপর। আরও পড়ুন: কংগ্রেস ছাড়লেন তারকা নেতা

দেখুন টুইট

কেন্দ্রীয় সরকারের কৃষি বিলের বিরুদ্ধে ব্যাপক বিক্ষোভ হয় পঞ্জাবে। মূলত পঞ্জাবের কৃষকদের প্রতিবাদের কারণে নরেন্দ্র মোদী কৃষি বিল প্রত্যাহার করেন।  যদিও এরপরেও কৃষকদের কিছু দাবি নিয়ে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে বিক্ষিপ্তভাবে আন্দোলন চলছে। সেই কৃষি আন্দোলনের জেরে গত মাসে এই ভাতিন্দা বিমানবন্দর থেকে নেমে সড়কপথে যাওয়ার সময় বিক্ষোভের মুখে পড়ে আটকে গিয়েছিল খোদ প্রধানমন্ত্রীর কনভয়। মোদীর নিরাপত্তা নিয়ে বড় প্রশ্ন উঠেছিল। যা নিয়ে গোটা দেশজুড়ে বিতর্কের ঝড় উঠেছিল।

পঞ্জাব বিধানসভা নির্বাচনে এবার কংগ্রেস ছেড়ে নতুন দল গড়া অমরিন্দর সিংয়ের সঙ্গে জোট বেঁধে লড়ছে বিজেপি। কৃষি বিল তুলে নিলেও পঞ্জাবে খুব একটা সুবিধাজনক জায়গায় নেই পদ্মশিবির। তবে পঞ্চনদের দেশকে নিয়ে আশা ছাড়ছে না বিজেপি। অমিত শাহ নিজে খুব গুরুত্ব দিচ্ছেন পঞ্জাবকে। রাজ্যের শাসক দল কংগ্রেস ও আম আদমি পার্টির মধ্যে মূল লড়াই হলেও প্রচারে ঝড় তোবলার চেষ্টা করছে বিজেপি। যদিও কৃষকদের একাংশ এখনও বিজেপির ওপর ক্ষুব্ধ। আগামী ২০ ফেব্রুয়ারি, রবিবার পঞ্জাবে ১১৭টি বিধানসভা কেন্দ্র ভোটগ্রহণ। প্রচার শেষ শুক্রবার।