Matir Srishti Project: পড়ে থাকা জমি কাজে লাগাতে 'মাটির সৃষ্টি' প্রকল্প ঘোষণা রাজ্য সরকারের
মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি (Photo: ANI)

কলকাতা, ১৩ মে: করোনা সংকটের মধ্যেই রাজ্যের কৃষকদের উন্নয়নের স্বার্থে একটি প্রকল্পের কথা ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি (CM Mamata Banerjee)। নতুন এই প্রকল্পের নাম 'মাটির সৃষ্টি' (Matir Srishti Project)। বুধবার নবান্নে (Nabanna) সাংবাদিক বৈঠকে তিনি বলেন, "দুরন্ত বৈপ্লবিক কর্মসূচি ঘোষণা করছি। জেলা পরিষদের সভাধিপতিদের সঙ্গে বৈঠক করছি। ৫০ হাজার একর জমি এতে আসবে। আড়াই লাখের বেশি মানুষ এতে উপকৃত হবে। পরিবেশ বান্ধব প্রজেক্ট। নাম 'মাটির সৃষ্টি'।' শুধু তাই নয়, তিনি জানান, ইতিমধ্যেই ৬ হাজার ৫০০ একর জমিতে প্রাথমিকস্তরে কাজ শুরুও হয়েছে।"

মুখ্যমন্ত্রী জানান, বাঁকুড়া, পুরুলিয়া, বীরভূম, ঝাড়গ্রাম, পশ্চিম মেদিনীপুর, পশ্চিম বর্ধমানে অনেক জমি পড়ে রয়েছে। সরকারের ও কৃষকেরও। মাটি খুব রুক্ষ বলে কৃষকরা কিছু করতে পারে না। এই মাটির সৃষ্টি প্রকল্পের মাধ্যমে মাছ চাষ, পশু পালনের মতো কাজ চলবে। স্থানীয় চাষিদের ১০-২০ একর ও সরকারি জমি নিয়ে মাইক্রো প্ল্যান তৈরি করা হবে। সমবায় গড়া হবে, মহিলা স্বনির্ভর গোষ্ঠীকে কাজে লাগানো হবে। কোনও ঠিকাদার নিয়োগ করা হবে না। ১০০ দিনের কাজের মাধ্যমে কাজ করা হবে। জলসম্পদ অনুসন্ধান ও উন্নয়ন দপ্তর এই বিভাগ হিসেবে এই প্রকল্প রূপায়ন করবে। সমবায় ব্যাঙ্ক থেকে ফান্ডিং করা হবে। আরও পড়ুন: Mamata Announces Bonus For Employees: ৪২০০ টাকা উৎসব বোনাস পাবেন রাজ্য সরকারি কর্মচারীরা, ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী

মুখ্যমন্ত্রী এদিন আরও ঘোষণা করেন, লকডাউন উঠলেই বাংলার প্রতি জেলায় সেন্টিনেল সার্ভে হবে। তিনি জানান, ডেঙ্গির মত করোনাও তার রূপ বদলাচ্ছে। গতিবিধি বদলাচ্ছে। আগামীদিনে তার গতিপ্রকৃতি কী হবে, তা জানতে ও ভবিষ্যতে করোনা আটকাতে কী কৌশল নেওয়া হবে, তা নির্ধারণ করতে একটি সার্ভে করা হবে। এটা রাজ্য সরকার করবে। ভারতের প্রথম রাজ্য হিসেবে বাংলায় শুরু হবে এই সার্ভে। মমতা বলেন, বিভিন্ন মহামারীর ক্ষেত্রে এই সার্ভে কাজে লাগবে।