Dilip Ghosh: সহ্যশক্তি বাড়ান, আরও কঠোর কথা শুনতে হবে: দিলীপ ঘোষ
বিজেপির সভাপতি নির্বাচিত হলেন দিলীপ ঘোষ (Photo: Facebook)

কলকাতা, ১৬ জানুয়ারি: দ্বিতীয় বারের জন্য পশ্চিমবঙ্গ বিজেপির সভাপতি (West Bengal BJP president) নির্বাচিত হলেন দিলীপ ঘোষ (Dilip Ghosh)। রাজ্য সভাপতি নির্বাচনের জন্য আজ সকাল ১১টা থেকে রাজ্য বিজেপির বৈঠক বসেছিল ন্যাশনাল লাইব্রেরিতে। সেখানেই দিলীপ ঘোষের নাম ফের সভাপতি পদে ঘোষণা করা হয়। পদে ফের পুনর্নির্বাচনের জন্য় মানুষের আশীর্বাদকে পাথেয় মনে করছেন দিলীপ। ২৪ ঘণ্টার খবর অনুযায়ী, তিনি বলেন, "প্রথমবার বিজেপির রাজ্য সভাপতি হওয়ার পর বিধায়ক হয়েছি। পরে সাংসদ হয়েছি। মানুষ আমায় আশীর্বাদ করেছেন বলেই আজ এই জায়গায়।" তাঁর এই সাফল্যের দলের প্রত্যেক কর্মীকে ধন্যবাদ জানান দিলীপবাবু। বলেন, কর্মীদের আত্মত্যাগেই ১৮ সাংসদ পেয়েছি।

মেদিনীপুরের সাংসদ বলেন, “ভদ্রলোকের এক কথা। ২২টা তো ২২টা। অনেকই সাহস করে এই সংখ্যা বলতে পারেনি। কিন্তু আমি বিজেপি সভাপতি। কর্মীদের উপর ভরসা ছিল বলেই বলতে পেরেছিলাম। ১৭ শতাংশ থেকে ৪০ শতাংশ ভোট পৌঁছেছে আমাদের। এর জন্য ৯২ জন কর্মীর মৃত্যু হয়েছে। ২ হাজার কর্মী জেলে। ৩ হাজার কর্মী বাড়িছাড়া।" আরও পড়ুন: Dilip Ghosh: জল্পনা শেষ, বিকল্প না পাওয়ায় বিজেপি রাজ্য সভাপতির পদে বহাল থাকলেন দিলীপ ঘোষ

তাঁর নানা মন্তব্য নিয়ে মাঝেমধ্যেই খবরে থাকেন দিলীপ ঘোষ। কখনও বিরোধীদের আবার কখনও বিজেপির সমালোচক কোনও বিশিষ্ট ব্যক্তিকে কড়া ভাষায় আক্রমণ করেছেন তিনি। এমনও কথা বলে ফেলেন যার কারণে খোদ দলও অস্বস্তিতে পড়ে। সম্প্রতি সিএএ বিরোধী বিক্ষোভকারীদের প্রসঙ্গে দিলীপবাবু বলেছিলেন, "কুকুরের মতো ওদের গুলি করে মারা উচিত। যা নিয়ে জোর বিতর্ক তৈরি হয়। এই বিষয়ে দিলীপ ঘোষ আজ বলেন, "রাজ্যে যা পরিস্থিতি। মিষ্টি মিষ্টি কথা আশা করেন? সহ্যশক্তি বাড়ান। আরও কঠোর কথা শুনতে হবে।

তৃণমূলকে দিলীপ ঘোষের হুঁশিয়ারি, "যোগ্য জবাব দেওয়াই আমাদের গণতন্ত্র। আমরা পোস্ট দিই না। ঝান্ডা দিই। পার্টির আদর্শ দেখেই কর্মীরা আসেন। মহাভারতের যুদ্ধের মতো যুদ্ধ শেষ হবে পশ্চিমবঙ্গে এসে। এক কোটি সৈনিক লড়াই করছে। মানুষ বিকল্প পথ খুঁজে নিয়েছে। শুধু পরীক্ষা দিয়ে পাস করতে হবে।"