Assam Villagers Kill Leopard:নৃশংশতার নজির, চিতাবাঘকে মেরে চোখ উপরে থাবা কেটে নিল গ্রামবাসীরা
চিতাবাঘ পিটিয়ে হত্যা( Photo Credit-ANI /Twitter)

অসম,১জুন,২০১৯:‌ চিতাবাঘকে নৃশংসভাবে হত্যা করলেন অসমের গ্রামবাসীরা। অসমের ভোরহাট অঞ্চলের ভেসেলিপাথার গ্রামের বাসিন্দারা পিটিয়ে মারে চিতাবাঘটিকে(‌ Leopard )‌। তাঁদের অভিযোগ গত কয়েকদিন ধরেই চিতাবাঘটি গ্রামে ঢুকে গরু–মেষ খেয়ে যাচ্ছিল। সেকারণেই গত কয়েকদিন ধরে ওত পেতে ছিলেন গ্রামবাসীরা। সুযোগ পেয়েই ফাঁদ পেতে চিতাবাঘটিকে ধরে ফেলেন তাঁরা। তারপর নৃশংসভাবে পিটিয়ে হত্যা করা হয় বাঘটিকে।

নিস্তেজ হয়ে মৃত্যুর মুখে ঢল পড়ার পরেও চিতাবাঘটিকে রেহাই দেয়নি তারা।

তার দেহ থেকে দুটি চোখ খুবলে তুলে নেওয়া হয়। কেটে নেওয়া হয় চারটি থাবা(‌Chop Off Paws)‌। নৃশংসতার নজির তৈরি করতে মৃত চিতাবাঘটিকে গ্রামের চৌমাথায় ঝুলিয়ে দেয় তাঁরা। গ্রামবাসীদের দাবি, গত কয়েকদিন ধরে এই চিতাবাঘটির তাণ্ডবে অতিষ্ট হয়ে উঠেছিলেন তাঁরা। গরু–বাছুর টেনে নিয়ে যাওয়া পর্যন্ত ঠিক ছিল। এর পর গ্রামবাসীদের উপর হামলা চালাতে শুরু করেছিল জন্তুটি।

দিনকয়েক আগেই নাকি নীলেশ্বর চাঙ্গমাইয়ের ওপর ভয়ঙ্কর হামলা চালিয়েছিল বাঘটি। প্রাণে রক্ষা পেলেও নীলেশ্বরের অবস্থা আশংকাজনক। প্রথমে তাঁকে ভর্তি করা হয়েছিল স্থানীয় চারাইদেও গ্রামীণ হাসপাতালে। অবস্থা সংকটজনক হওয়ায় পরে স্থানান্তরিত করা হয় ডিব্রুগড় আসাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। কয়েক বছর আগে এই ডিব্রুগড়েই একটি চিতাবাঘকে মেরে মাংস খেয়েছিল গোটা গ্রাম।