Dr. Shahid Jameel Resigned: কোভিড ব্যবস্থাপনায় গড়িমসি করেছে কেন্দ্র, প্যানেল থেকে ইস্তফা মহামারী বিশেষজ্ঞ শাহিদ জামিলের
করোনা

নতুন দিল্লি, ১৭ মে: ভারতের করোনা পরিস্থিতি কোনও সীমারেখা মানছে না। দেশের কোভিড নিয়ন্ত্রণে মোদি সরকারের গড়িমসিকে কাঠগড়ায় তুলে কেন্দ্রীয় প্যানেল থেকে পদত্যাগ করলেন মহামারী বিশেষজ্ঞ ডাক্তার শাহিদ জামিল (Dr. Shahid Jameel)। গত শুক্রবার তিনি পদত্যাগ করেন। গতকাল রবিবার এক সর্বভারতীয় সংবাদ মাধ্যমে এই প্রসঙ্গে সাক্ষাৎকারে তাঁর মন্তব্য, “আমার কিছুই বলার নেই।” এদিকে বেশ কয়েকদিন আগেই নিউইয়র্ক টাইমসে এক উত্তর সম্পাদকীয়তে ভারতের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে মোদি সরকারের সমালোচনায় মুখর হন তিনি। কোভিড মোকাবিলায় কেন্দ্রের নীতি নির্ধারণ নিয়ে যে সময় নষ্ট হয়েছে তাতেও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন এই বিশিষ্ট বিজ্ঞানী। তিনটি কারণে ভারতের কোভিড পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে গেছে।

প্রথমত টেস্ট বেশি হয়নি। টিকাকরণ প্রক্রিয়ার দীর্ঘসূত্রিতা ও স্বাস্থ্যকর্মীদের সঙ্কট। এই বিরাট জনঘনত্বের দেশে এখনও পর্যন্ত মাত্র সাড়ে ১৪ কোটি শরীরে গেছে করোনার প্রতিষেধক। তবে মাত্র ৩ কোটি পেয়েছেন দ্বিতীয় ডোজ। সংক্রমণের রেখাচিত্র তৈরি করতে আরও ডেটা লাগবে। এপ্রিলের সেষে দেশের ৮০০ বিজ্ঞানী এনিয়ে প্রদানমন্ত্রীর কাছে দরবার করলেও কে শোনে কার কথা। বিজ্ঞানীরা বার বার সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে। তবে কেন্দ্র নীতি নির্ধারণ নিয়ে গড়িমসি করেই চলেছে। এই পরিস্থিতি থেকে বেরনো রীতিমতো অসম্ভব হয়ে পড়ছে দিনে দিনে। আরও পড়ুন-Firhad Hakim Arrested: নারদা মামলায় ‘গ্রেপ্তার’ ফিরহাদ হাকিম, বাদ গেলেন না মদন, শোভন ও সুব্রত

গত মার্চেই বিজ্ঞানীরা মোদিকে জানিয়েছিলেন, এখনও সঠিক নীতি নির্ধারণ না হলে দ্বিতীয় ঢেউ ভয়াবহ আকার নেবে, বহু মানুষ প্রাণ যাবে। আজকের এই পরিস্থিতির জন্যে কেন্দ্রের গাফিলতিইকেই কাঠগড়ায় তুলেছেন তিনি। এদিকে শাহিজ জামিলের পদত্যাগ নিয়ে মুকে কুলুপ এঁটেছেন কেন্দ্রে বায়োটেকনোলজি সচিব রেণু স্বরূপ। শাহিদ জামিলের পদত্যাগের খবর পেতেই সরব বিরোধীরা। কংগ্রেস নেতা জয়রাম রমেশ বলেন, “মোদি সরকারে পেশাদারদের কোনও জায়গা নেই। যিনি কোনওরকম স্বজনপোষণ ছাড়া ভয়হীনভাবে মুক্তমনে বক্তব্য রাখতে পারবেন। ভারতের অন্যতম মহামারী বিশেষজ্ঞ শাহিদ জামিলের পদত্যাগের খবর নিতান্তই দুঃখের।” তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মিত্রও এনিয়ে টুইটারে সরব হয়েছেন।