'হিন্দু-পাকিস্তান' মন্তব্যের জের: কলকাতার কোর্টে কাঠগড়ায় শশী থারুর, শহরের মেট্রোপলিটন কোর্টে কেরলের কংগ্রেস সাংসদের নামে জারি গ্রেফতারি পরোয়ানা
শশী থারুর। ফাইল ছবি। (Photo Credit: PTI/File)

কলকাতা, ১৩ অগাস্ট: Shashi Tharoor- বিজেপি দেশকে 'হিন্দু-পাকিস্তান'-এ পরিবর্তন করবে এমন বিতর্কিত মন্তব্যের জের। কলকাতা ম্যাজিস্ট্রেট মেট্রোপলিটন কোর্ট ((Kolkata Magistrate Metropolitan Court)-এ কেরলের কংগ্রেস সাংসদ তথা শীর্ষ নেতা শশী থারুর নামে জারি হল গ্রেফতারি পরোয়ানা। তিরুবনন্তপুরমের কংগ্রেস সাংসদ শশী থারুর বিজেপি-কে আক্রমণ করে বলেছিলেন, ওরা ২০১৯ সালে লোকসভা নির্বাচনে জিতলে দেশকে হিন্দু-পাকিস্তান বানিয়ে ছাড়বে। থারুরের এই মন্তব্যের জেরেই তাঁর বিরুদ্ধে মামলা করেছিলেন আইনজীবী সুমিত চৌধুরী। সেই মামলার জেরেই থারুরের বিরুদ্ধে জারি হল গ্রেফতারি পরোয়ানা।

'ভারতীয় গণতন্ত্রের বিপদ ও ধর্মনিরপেক্ষতা' শীর্ষক অনুষ্ঠানে কংগ্রেস সাংসদ শশী থারুর বলেছিলেন, ''বিজেপি লোকসভায় জিতলে নতুন সংবিধান তৈরি করবে যাতে এমন সব আইন আসবে যে আমাদের দেশ হিন্দু পাকিস্তানে পরিণত হবে।'' উচ্চশিক্ষিত নেতা থারুরের এই মন্তব্যে জোর বিতর্ক হয়েছিল। আরও পড়ুন-চেয়ার-জুতো ছুঁড়ে সশস্ত্র ডাকাতদের তাড়ালেন সাহসী বৃদ্ধ-বৃদ্ধা (দেখুন ভিডিও)

থারুরের মন্তব্যকে ব্যক্তিগত মতামত বলে বিতর্ক থেকে নিজেদের দূরে রেখেছিল কংগ্রেস।  সংখ্যালঘুদের সব অধিকার কেড়ে নিয়ে ভারত 'হিন্দু পাকিস্তান'-এ পরিবর্তন হবে বলে আশঙ্কাপ্রকাশ করেছিলেন কেরলের এই কংগ্রেস সাংসদ ।

তাঁর হিন্দু-পাকিস্তান বক্তব্যের জন্য বিতর্ক হলেও থারুর পিছু না হটে বলেছিলেন, '' এটা তো বিজেপি আগেই স্পষ্ট করেছিল যে ওরা হিন্দু রাষ্ট্র চায়। কারণ এটাই বিজেপির আদর্শ। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি নিজে দীনদয়াল উপাধ্যায়কে অনুসরণ করার পরামর্শ দিয়েছে । যে দীনদয়াল উপাধ্যায় কোনওদিনই ভারতীয় সংবিধানে বিশ্বাস রাখতেন না। হিন্দুদের নিয়েই সংবিধান ও দেশ গঠন করা উচিত বলে মনে করেন এই নেতারা।''