Ease of Doing Business List: ব্যবসা করা আরও সহজ, 'ইজ অফ ডুয়িং বিজনেস' তালিকায় ১৪ ধাপ উঠল ভারত
(photo Credits: IANS)

নতুন দিল্লি, ২৪ অক্টোবর: ভারতে ব্যবসা (Business) করা আগের থেকে আরও সহজ হয়েছে। কোন দেশে কত সহজে ব্যবসা করা যায়, বিশ্ব ব্যাঙ্কের (World Bank) সেই সূচকের নিরিখে এই মুহূর্তে বিশ্বের ১৯০টি দেশের তালিকায় ভারত উঠে এসেছে ৬৩ নম্বরে। ২০১৮ সালে এই তালিকায় দেশের র‌্যাঙ্কিং ছিল ৭৭। বিশ্ব ব্যাঙ্কের ‘ইজ অফ ডুয়িং বিজনেস’(Ease of Doing Business) শীর্ষক রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছে বৃহস্পতিবার। বিশ্বের ১৯০টি দেশের অর্থনীতির অন্তত দশটি মানদণ্ডের নিরিখে ওই রিপোর্ট তৈরি করে থাকে বিশ্ব ব্যাঙ্ক। টানা তৃতীয়বারের মতো তালিকার শীর্ষ ১০ জন পারফরমারদের মধ্যে ভারত স্থান পেয়েছে। নিউজিল্যান্ড রয়েছে তালিকার শীর্ষে। ঠিক পরেই রয়েছে সিঙ্গাপুর, হংকং। কোরিয়া পঞ্চম এবং আমেরিকা ষষ্ঠ স্থানে রয়েছে।

আর্থিক মন্দার মধ্যেই বিশ্ব ব্যাংকের এই তথ্য নিঃসন্দেহে খানিকটা স্বস্তি দেবে নরেন্দ্র মোদি সরকারকে। কারণ, এই র‌্যাঙ্কিং এমন সময়ে এসেছে যখন রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া (RBI), বিশ্ব ব্যাঙ্ক (World Bank), ইন্টারন্যাশনাল মনিটারি ফান্ড (IMF) এবং বিভিন্ন রেটিং এজেন্সিগুলি দেশের আর্থিক বৃদ্ধির হারের পূর্বাভাস কমিয়ে দিয়েছে। ২০২০ সালের 'ডুয়িং বিজনেস' প্রতিবেদনে বিশ্ব ব্যাঙ্ক ভারতের অর্থনীতির আকারের ভিত্তিতে নেওয়া সংস্কার প্রচেষ্টার প্রশংসা করেছে। "ভারত 'টু বিজনেস'- তালিকায় এ নিয়ে টানা তৃতীয়বার স্থান পেল ভারত। যা ২০ বছরের মধ্যে খুব কম দেশ এই সাফল্য পেয়েছে। ভারত ছাড়াও শীর্ষ দশ দেশের মধ্যে রয়েছে চিন (৩১), বাহারাইন (৪৩) সৌদি আরব (২), জর্ডন (৭৫), কুয়েত (৮৩), টোগো (৯৭), তাজিকিস্তান (১০৬), পাকিস্তান (১০৮) এবং নাইজেরিয়া (১৩১)। আরও পড়ুন: Uber: উবার অ্যাপে এবার দেখা যাবে মেট্রোর রুট; দিল্লি মেট্রোর সঙ্গে গাঁটছড়া বেঁধে চালু হতে চলেছে নতুন গণ পরিবহন পরিষেবা

বিশ্ব ব্যাঙ্কের রিপোর্টে মেক ই ইন্ডিয়া প্রকল্পের প্রশংসা করা হয়েছে। বলা হয়েছে, 'মেক ইন ইন্ডিয়া'-র কারণে বিদেশি বিনিয়োগ আকর্ষণ করেছে। এছাড়া বেসরকারি খাতকে উৎসাহ, বিশেষত উৎপাদন এবং দেশের সামগ্রিক প্রতিযোগিতা বাড়াতে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা নিয়েছে। আর্থিক সংস্কারের প্রতি ভারতের প্রতিশ্রুতিবদ্ধতা ও বাস্তব অগ্রগতি বিনিয়োগকারীদের আকৃষ্ট করেছে। ২০১৫ সালে সরকারের লক্ষ্য ছিল ২০২০ সালের মধ্যে এই তালিকায় প্রথম ৫০টি দেশের মধ্যে থাকা।