Cow Vigilantism in Madhya Pradesh: গরু পাচারের অভিযোগে ২৪ জনকে একসঙ্গে বেঁধে, কান ধরে বসিয়ে বেধড়ক মার
গরু পাচারের শাস্তি। (Photo Credits:ANI)

ভোপাল, ৮ জুলাই: Cow Vigilantism in Madhya Pradesh: গরু পাচারের অপরাধে অমানবিকর সাজা মধ্যপ্রদেশের ভোপালে। মধ্যপ্রদেশের খান্ডোয়া জেলার সাভালিকেড়া গ্রামে গরু পাচারের অভিযোগে এমন শাস্তি দেওয়া হল যা হারা মানাল মধ্যযুগীয় বর্বরতাকেও। গোরক্ষকদের তঘলুকিতে গরু পাচার করার অভিযোগে ২৪ জনকে একসঙ্গে বেঁধে, রাস্তায় হাঁটু মুড়ে, কান ধরে বসিয়ে বেধড়ক মারধরের অভিযোগ উঠল।

শুধু মারধর নয়, তারপর আবার মনার খেতে খেতে জোর করে 'গো মাতা কি জয়' বলতেও বাধ্য করা হল। আক্রান্ত ২৪ জনের মধ্যে ৬ জন মুসলিমও আছেন বলে খবর। আরও খবর-যমুনা এক্সপ্রেসওয়েতে বাস উল্টে ২৯ জনের মৃত্যু

ঠিক কী হয়েছিল? গোরক্ষকদের দাবি, জনা ২৫ জন গরু পাচারকারীকে তারা হাতেনাতে ধরে ফেলেন। যদিও আক্রান্তদের দাবি, মহারাষ্ট্রে পশু মেলায় গরু নিয়ে যাচ্ছিলেন তাঁরা। কিন্তু আচমকাই প্রায় একশো জন মানুষ তাদের দিকে রে রে করে তেড়ে আসেন। গরু চুরির অভিযোগ তুলে বেধড়ক মারধর করা শুরু করেন গোরক্ষকরা। তার পর দড়ি দিয়ে বেঁধে তিন কিলোমিটার তাঁদের হাঁটিয়ে খালোয়া থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। শুধু তাই নয় অভিযোগ, হামলাকারীরা তাঁদের জোর করে 'গো মাতা কি জয়' বলতে বাধ্য করেন।

মোবাইলে পুরো ঘটনার ভিডিও করে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছাড়তেই তা ভাইরাল হয়ে যায়। আর তারপরই শুরু হয় নিন্দার ঝড়। ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, দলের ১৫ জনের হাত দড়ি দিয়ে বাঁধা অবস্থায় রাস্তা দিয়ে হাঁটু মুড়ে বসিয়ে ওই অবস্থাতেই চলতে বাধ্য করা হয়। তখনও তাঁদের মুখে তখন শোনা যাচ্ছে "গো মাতা কি জয়" ধ্বনি!

জেলা পুলিশ সুপার শিবদয়াল সিংহ জানিয়েছেন, আক্রান্তরা মেলায় গরু নিয়ে যাওয়ার দাবি করলেও, তেমন কোনও প্রমাণ দিতে পারেননি। তিনি বলেন, ''আক্রান্তদের কাছে কোনও বৈধ নথি ছিল না। এবং যে গাড়ি করে গরুগুলো নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল সেটারও প্রয়োজনীয় কাগজপত্র পাওয়া যায়নি। মধ্যপ্রদেশ গোবংশ বধ প্রতিষেধ অধিনিয়ম-এ আক্রান্তদের বিরুদ্ধে মামলা রুজু করা হয়েছে। গ্রেফতারও করা হয়েছে তাঁদের।''